ঈদের সাজগোজ

প্রকাশ : ১০ আগস্ট ২০১৯, ১২:২৭

অনলাইন ডেস্ক

 

কাজের ঈদে বেলায় বেলায় সাজের সময় কই? কেমন হয়, যদি এক সাজেই কাটিয়ে দেওয়া যায় ঈদের দিন-রাত! সাজ না বদলালেও লুক কিন্তু বদলে যাবে নিমিষেই।

গরমের ঈদ। বৃষ্টিও হতে পারে। ভোরবেলা রান্নাঘরে ঢুকতে হবে। বের হতে হতে বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যা হয়ে যায়। এর মাঝেই চলবে অতিথি অভ্যর্থনা ও আপ্যায়ন। তাই রান্নাঘরেও নিজেকে পরিপাটি রাখা চাই। দিনভর এক সাজের আবদার নিয়ে গেছিলাম রেড বিউটি স্যালনে। রূপবিশেষজ্ঞ আফরোজা পারভীন জানালেন সাজের সহজ সেই সমীকরণ। বললেন, ‘সহজ কিছু কৌশল জেনে নিলেই সাজ আর কাজ দুটোই সামলানো যাবে একলা হাতে। রাতের জমকালো পার্টিতেও এখন স্নিগ্ধ-সতেজ মিনিমাল মেকআপের ট্রেন্ড চলছে। উত্সবের দিনে তাই মুখভর্তি মেকআপ একদমই নয়। সারা দিন যেহেতু চুলার পাশেই কাটবে; সুতরাং সানস্ক্রিন মাস্ট। সকালে মুখ ধুয়ে প্রথমে ময়েশ্চারাইজার মেখে নেওয়া চাই। এরপর সানস্ক্রিন। এর ওপর কমপ্যাক্ট পাউডারের প্রলেপ বুলিয়ে নিলেই তৈরি হয়ে যাবে সাজের বেইজ। চোখের সাজে বেছে নিন ত্বকের রঙের সঙ্গে মানানসই ক্রিমি আইশ্যাডো। আইলাইনার বা মাশকারাও চলতে পারে। অবশ্যই তা হওয়া চাই ওয়াটারপ্রুফ। গালে ক্রিম ব্লাশনে সহজেই লুকে স্নিগ্ধ লুক ফুটে উঠবে। সবশেষে ওয়াটারপ্রুফ সেটিং স্প্রে করে মেকআপ সেট করে নিন। ব্যস, সাজ শেষ। এই সাজেই সারা দিন অনায়াসে কেটে যাবে। এবার আরামদায়ক পোশাক পরে উত্সবের দিনটা শুরু করুন। গরমে চুল বেঁধে নেওয়াটাই সবচেয়ে স্বস্তির। রান্নাঘরে হাতখোঁপা করে নিন। অতিথি আপ্যায়নের সময় না হয় চুলটা ছেড়েই দিন। রান্না শেষে দুপুরে পোশাক বদলে মেকআপ হালকা টাচআপ করে নিন। পরিপাটি করে আঁচড়ে পেছনে বাঁধতে পারেন পনিটেইল, বেণি বা বেণিখোঁপা। বিকেলে বাইরে বের হতে চাইলে বেইজে একটু পাউডার বুলিয়ে নিলেই হবে। হাতে একটু সময় থাকলে চুলটা কার্ল করে নতুন পোশাক পরলে দেখবেন লুক এমনিতেই বদলে যাবে। সন্ধ্যার পর সাজে শাইনি লুক চাইলে শিমার পাউডার বুলিয়ে নিন টি জোনে। লুক বদলে পোশাকের সঙ্গে মানানসই গয়না বাছুন। বিশ্বজুড়ে এখন রুপালি গয়নার ক্রেজ। আপনিই বা বাদ যাবেন কেন! দিনে ছিমছাম আর বিকেলের পর থেকে একটু ভারী গয়না বাছুন। তাহলে এবার এক সাজেই সার্থক হোক উত্সবের দিনমান।

মানিক সরকার / বাংলা বিচিত্রা

পুরনো সংখ্যা
  • ১৭ অক্টোবর ২০১৯

  • ৩ অক্টোবর ২০১৯

  • ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯

  • ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯